বেস্ট ৫ টি ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম রিভিউ (best free wordpress theme)

ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম? হ্যা, ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম দিয়েও প্রফেশনাল ব্লগ/ ই-কমার্স ওয়েবসাইট বানানো সম্ভব। আজকের এই আর্টিকেলে বেস্ট ৫ টি ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম নিয়েই আলোচনা করব।

আমাদের অনেকের মাঝেই একটা ভূল ধারণা রয়েছে যে ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম দিয়ে সাইট তৈরি করলে সেটার মান হয়তোবা ভাল হবে না, সাইটের স্পীড বা এসইও ভাল হবে না অথবা এডসেন্স পেতে সমস্যা হবে এরকম আরো অনেক কিছুই। কিন্তু বাস্তবতা হলো থিম ফ্রি নাকি পেইড তার উপরে এসবের কিছুই নির্ভর করে না।

ফ্রি থিমে সাইটের স্পীড/ এসইও প্রভাব –

একটা থিমের পেইড ভার্শনে সাইটের স্পীড বা এসইও যেমন কাজ করবে সেই একিই থিমের ফ্রি ভার্শনেও স্পীড বা এসইও সেই একিই রকম কাজ করবে। এখানে আসল ব্যাপার হলো থিম পেইড নাকি ফ্রি এর সাথে এসইও এর কোন সম্পর্ক’ই নাই। এসইও নির্ভর করে আপনার কন্টেন এর মানের উপর। তাই ওয়েবসাইটে ফ্রি থিম ব্যবহার করেও অনেক ভাল কিছু করা সম্ভব।

কিন্তু আপনি যদি ফ্রি থিম ব্যবহার না করে সেই এটিই থিমের ক্র‍্যাক/ নুল থিম ব্যবহার করে প্রিমিয়াম সুবিধা পাবার জন্য, তাহলে সেক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইটের স্পীড/ এসইও এর উপর যে একটা প্রভাব পরবে সে বিষয়ে নিশ্চিত থাকতে পারেন। কেননা ক্র‍্যাক থিম গুলোতে অনেক ভাইরাস/ ম্যালিসিয়াস বা অতিরিক্ত কোড থাকে যেগুলো আপনি বুঝতেও পারবেন না কিন্তু সেগুলো আপনার সাইটকে স্লো করে ফেলবে ও হ্যাক হবার ও প্রচুর সম্ভাবনা থাকে। তাই আমি বলব, যদি আপনার বাজেট কম থাকে তাহলে নুলড/ ক্র‍্যাক থিম ব্যবহার না করে ফ্রি ভার্শন ব্যবহার করতে পারেন নিশ্চিন্তে।

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের জন্য বেস্ট ফ্রি থিম-

আপনার সাইটের জন্য বেস্ট থিম কোনটা হবে সেটা কিভাবে বুঝবেন? যে থিম যত সাদাসিধা ও হালকা ওজনের সেই থিম এসইও এর জন্য বেশি ভাল। বেশি ভারী থিম ওয়েবসাইটে ব্যবহার করলে সাইট লোড হতে বেশি সময় লাগবে যা এসইও এর ক্ষেত্রে খুব খারাপ প্রভাব ফেলবে। আর আপনার থিম যতো সাদাসিধা হবে, পাঠকরা আপনার সাইট ব্যবহার করে ও বেশি স্বাচ্ছন্দ বোধ করবে আর গুগল ও আপনার সাইটকে বেশি গুরুত্ব দিবে।

চলুন, এসইও এর উপর ভিত্তি করে সেরা ৫ টি ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম দেখে নেয়া যাক।

1. Generatepress

বেস্ট ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম

আপনি ওয়ার্ডপ্রেসে ব্লগ, ই-কমার্স, পোর্টফলিও বা যেই সাইট’ই বানাতে চান না কেন; আপনার জন্য বেস্ট অপশন হবে জেনারেটপ্রেস থিম। এই থিমটি কে প্রথমে রাখার ও এতটা গুরুত্ব দেয়ার প্রধান কারন হচ্ছে এটার লাইট ওয়েট বা হালকা ওজন। থিমটি খুবিই কম ওজনের আর সিম্পল যা আপনার সাইটের দ্রুত লোডিং ও এসইও তে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

আমি নিজেও আমার https://penmanbd.com সাইটে এই থিমের প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করেছি। আমি ছাড়াও বাংলাদেশের ৮০% ব্লগেই দেখবেন এই থিম ব্যবহার করা হয়েছে। পুরো বিশ্বে বর্তমানে ৩০০,০০০ এর ও বেশি ওয়েবসাইটে এই থিমটি একটিভ রয়েছে।

আপনি যদি এই থিমটির প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করতে চান তাহলে লাইফটাইম লাইসেন্স এর জন্য আপনাকে গুনতে হবে ২৪৯$ যা বাংলাদেশের টাকায় প্রায় ২০,০০০ টাকার মতো। হ্যা, আপনি ঠিকিই শুনেছেন বিশ হাজার টাকা। প্রিমিয়াম থিম কিনলে আপনি পাবেন লাইফটাইম আপডেট ও সাপোর্ট। আর আপনি একবার লাইসেন্স কিনলে সেটি ৫০০ টির অধিক সাইটে ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে এক বছরের জন্যও থিমটা কিনতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনার খরচ পড়বে ৫৯$ (ডলার)।

থিমটার প্রাইস ও ফিচার সম্পর্কে জানতে এই থিমের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ঘুরে আসতে পারেন

আমি যেহেতু থিমটা লাইফটাইমের জন্য কিনেছি, তাই আপনারা চাইলে আমার থেকে নিতে পারেন কম দামে। আমার ব্লগের পাঠক হিসেবে আপনার জন্য আমি এইটুকু করতে পারি। এজন্য আমার ফেসবুক পেইজে মেসেজ করতে পারেন।

জেনারেটপ্রেস এর ফিচারগুলো দেখে নিন-

  • LESS THAN 10KB এই থিমে প্রতিটা পেজের সাইজ ১০ কেবি থেকেও কম যা দ্রুত সাইট লোড নিতে সহায়তা করবে ও আপনি ভাল এসইও পাবেন।
  • SEO FRIENDLY – খুব কম পেইজ সাইজ ও ফাস্ট লোডিং এর কারনে ও এর স্ট্রাকচার এর কারনে আপনি খুব ভাল এসইও রেজাল্ট পাবেন।
  • SECURE – এই থিমের ডেভেলপার গন যেই বিষয়ের উপর বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন তা হলো এর সিকিউরিটি। এর কোডিং গুলো যথেষ্ট সিকিউর ও স্টাবল।
  • CUSTOMIZE – আপনি এই থিমে সবচাইতে বেশি যে এডভান্টেজ পাচ্ছেন তা হলো কাস্টোমাইজ। আপনি থিমের টপ থেকে ফুটার পর্যন্ত প্রতিটা অংশ আপনার ইচ্ছে মতো এডিট করতে পারবেন কোন কোডিং ও এডিটিং নলেজ ছাড়ায়।

2. Astra

ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম

জেনারেটপ্রেস এর পরেই যে থিমটির স্থান সেটি হলো আস্ট্রা। জেনারেটপ্রেস এর পরে বললে ভূল হবে এই দুইটি থিম প্রায় সম পর্যায়ের। কিন্তু আস্ট্রা থিম এর পেইজ সাইয ও লোড টাইম সামান্য বেশি জেনারেটপ্রেস থেকে।

তবে আপনি যদি চান যে, আপনি কখনো প্রিমিয়াম ভার্শন কিনবেন না তাহলে আপনার জন্য বেটার অপশন হবে Astra থিম। কেননা ফ্রি ভার্শনে আপনি এই থিমে বেশি ফিচার পাচ্ছেন, এমনকি ফ্রি ভার্শনে ডেমো সাইট ও ইমপোর্ট করতে পারবেন।

আপনি যদি এই থিমটির প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করতে চান তাহলে লাইফটাইম লাইসেন্স এর জন্য আপনাকে গুনতে হবে ২৪৯$ যা বাংলাদেশের টাকায় প্রায় ২০,০০০ টাকার মতো। হ্যা, আপনি ঠিকিই শুনেছেন বিশ হাজার টাকা। প্রিমিয়াম থিম কিনলে আপনি পাবেন লাইফটাইম আপডেট ও সাপোর্ট। আর আপনি একবার লাইসেন্স কিনলে সেটি ৫০০ টির অধিক সাইটে ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে এক বছরের জন্যও থিমটা কিনতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনার খরচ পড়বে ৫৯$ (ডলার)।

থিমটির প্রাইসিং ও ফিচার দেখে নিতে পারেন অফিশিয়াল সাইট থেকে।

এক নজরে দেখে নিন Astra থিম এর ফিচারগুলো –

  • Pre-Built website – এই থিমের সাথে আপনারা পাচ্ছেন প্রি বিল্ট ওয়েবসাইট, যা ফ্রি ভার্শনেও সীমিত আকারে পাওয়া যাবে। এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই ডেমো সাইট ইম্পোর্ট করতে পারবেন।
  • Customize Without code – থিমটি কাস্টমাইজড করতে আপনার কোন কোডিং জানতে হবে না। কোন কোডিং জ্ঞান ছাড়াই আপনি সাইটের সব কিছু কাস্টমাইজড করতে পারবেন।
  • Made for Page Builders – থিমটি Elementor, Wp backery সহ সকল ড্রাগ এন্ড ড্রপ বিল্ডারের জন্য উপযোগী।
  • Super Fast Performance – লাইট ওয়েট এর জন্য আপনার ওয়েবসাইট অনেক ফাস্ট নিতে পারবে।

3. Newspaper X

ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম

আপনি কি অল্প বাজেটের মধ্যে নিউজ/ ব্লগ/ ম্যাগাজিন সাইট চাচ্ছেন? তাও আবার এসইও এবং মোবাইল ফ্রেন্ডলি! তাহলে আপনার জন্য সেরা অপশন হলো Newspaper X থিমটি। নিউজ/ ব্লগ সাইটের জন্য সব চাইতে বেশি বিক্রি হওয়া থিমের মধ্যে একটি হলো Newspaper X থিম।

আপনি যদি এই থিমটির প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করতে চান তাহলে লাইফটাইম লাইসেন্স এর জন্য আপনাকে গুনতে হবে ৫৯$ যা বাংলাদেশের টাকায় প্রায় ৫০০০ টাকার মতো।

থিমটির প্রাইসিং ও ফিচার দেখে নিতে পারেন থিম ফরেস্ট থেকে।

এই থিমের ফিচার গুলো দেখে নিন এক নজরে-

  • Optimized performance – সাইট খুব দ্রুট লোড হয়। ডেমো সাইটগুলো চেক করে দেখতে পারেন, যা ২/৩ সেকেন্ডের মধ্যে লোড হয়ে যাবে।
  • 100+ importable demo sites – থিমের সাথে পাচ্ছে ১০০ টিরও বেশি ডেমো সাইট, যেগুলোর মাধ্যমে আপনার সাইট খুব সহজেই ডিজাইন করতে পারবেন।
  • Drag-and-drop design – এই থিমের নিজস্ব বিল্ডারের সাহায্যে আপনি ড্রাগ এন্ড ড্রপ ফিচারের মাধ্যমে কোন কোডিং জ্ঞান ছাড়ায় সাইট ডিজাইন করতে পারবেন।
  • Mobile friendly – থিমটি মোবাইলের ভার্শনের সাথেও রেসপন্সিভ ও AMP ফিচার ও সাপোর্টেড।

4. Divi

বেস্ট ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম

Divi থিম হলো বিল্ট ইন বিল্ডার সহো মোবাইল রেসপন্সিভ ও এসইও ফ্রেন্ডলি থিম। তবে উপরের ৩ টা থিমের চাইতে এই থিমের লোডিং স্পীড কিছুটা কম।

আপনি যদি এই থিমটির প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করতে চান তাহলে লাইফটাইম লাইসেন্স এর জন্য আপনাকে গুনতে হবে ৫৯$ যা বাংলাদেশের টাকায় প্রায় ৫০০০ টাকার মতো।

থিমটির প্রাইসিং ও ফিচার দেখে নিতে পারেন অফিশিয়াল থেকে।

এক নজরে দেখে এই থিমের ফিচারগুলো –

  • Divi builder – এই থিমের সব চাইতে ইউনিক বিষয় হলো এর নিজস্ব ড্রাগ এন্ড ড্রপ বিল্ডার। এর মাধ্যমে আপনি কোন কোডিং ছাড়ায় খুব সহজে নিজের মতো করে সাইট ডিজাইন করতে পারবেন।
  • Mobile friendly – থিমটি মোবাইলের ভার্শনের সাথেও রেসপন্সিভ ও AMP ফিচার ও সাপোর্টেড।
  • Customize Without code – থিমটি কাস্টমাইজড করতে আপনার কোন কোডিং জানতে হবে না। কোন কোডিং জ্ঞান ছাড়াই আপনি সাইটের সব কিছু কাস্টমাইজড করতে পারবেন।

5. OceanWP

Best free wordpress theme

Oceanwp হলো ই-কমার্স রেডি ও নিজস্ব এক্সটেনশন রেসপন্সিভ থিম। এখন পর্যন্ত 3,592,260 বার ডাউনলোড করা হয়েছে এই থিম।

আপনি যদি এই থিমটির প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করতে চান তাহলে লাইফটাইম লাইসেন্স এর জন্য আপনাকে গুনতে হবে ৫৯$ যা বাংলাদেশের টাকায় প্রায় ৫০০০ টাকার মতো।

থিমটির প্রাইসিং ও ফিচার দেখে নিতে পারেন অফিশিয়াল থেকে।

এক নজরে দেখে এই থিমের ফিচারগুলো –

  • Mobile friendly – থিমটি মোবাইলের ভার্শনের সাথেও রেসপন্সিভ ও AMP ফিচার ও সাপোর্টেড।
  • SEO FRIENDLY – খুব কম পেইজ সাইজ ও ফাস্ট লোডিং এর কারনে ও এর স্ট্রাকচার এর কারনে আপনি খুব ভাল এসইও রেজাল্ট পাবেন।
  • Super Fast Performance – লাইট ওয়েট এর জন্য আপনার ওয়েবসাইট অনেক ফাস্ট নিতে পারবে।
  • eCommerce Ready – থিম টিতে ই-কমার্স রেডি ডেমো সাইট পেয়ে যাবেন অনেক গুলো। তাই আপনি যদি ই-কমার্স সাইট বানাতে চান তবে এটি হতে পারে আপনার জন্য বেটার অপশন।
Share:

Hi, I'm Abdus Salam, founder of Penmanbd. I like to write and freelance in my spare time.