পোর্টফোলিও কি? কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়?

পোর্টফোলিও কি এবং কিভাবে একটি পরিপূর্ণ পোর্টফোলিও তৈরি করবেন অনলাইনে সেই বিষয়েই আজকের এই আর্টিকেলে পরিপূর্ণ আলোচনা করা হবে penmanbd.com ব্লগের পক্ষ থেকে।

যদি আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন আর পোর্টফোলিও সম্পর্কে কিছু জানেন না এটা অসম্ভব। আমার সকল ফ্রিল্যান্সার দের’ই কাজ পেতে গেলে এই কথা টা শুনতে হয় যে “আপনার পোর্টফোলিও কোথায়?” আর সেজন্যই একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে আপনার কাজ পেতে হলে একটা পোর্টফোলিও থাকা আবশ্যক।

পোর্টফোলিও কি?

পোর্টফোলিও হচ্ছে আপনার কাজ ও দক্ষতার সমষ্টি। অর্থাৎ আপনি যে কাজগুলো করে থাকেন সেইসব কাজের ডেমো বা নমুনা। মনে করুন আপনি একজন ওয়েব ডিজাইনার এবং আপনি আপনার ক্লায়েন্ট কে বললেন একটা কাজ আপনি ১০০$ এ করে দিবেন। এখন কি আপনার সেই ক্লায়েন্ট আপনার কোন কাজ না দেখেই, আপনি ভাল কাজ করতে পারেন কি না সেটা না জেনেই আপনাকে ১০০$ দিয়ে দিবে? আর বলবে আমার জন্য একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে দাও!

না, এরকম টা কখনোই হয় না। আপনার কাজের নমুনা না দেখে কোন ক্লায়েন্ট’ই চাইবে না আপনাকে কাজ দিতে। কারন সে জানে না আপনি তার কাজ টি সঠিক ভাবে শেষ করতে পারবেন কিনা। আর তাই আপনি যে কাজ গুলো ইতোমধ্যে শেষ করেছেন এবং সামনে সে কাজগুলো আরো করতে চান এমন কাজের ডেমো গুলো যদি আপনি এক জায়গায় সাজিয়ে রাখেন তাহলে কিন্তু আপনার ক্লায়েন্ট সেই কাজগুলো দেখে আপনার দক্ষতা সম্পর্কে একটা ধারণা পেয়ে যাবে আর আপনাকে কাজ দিতেও সাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন। আর আপনি যে আপনার বেস্ট কাজ গুলো সাজিয়ে রাখলেন এভাবে এটিই হচ্ছে আপনার পোর্টফোলিও।

পোর্টফোলিও কেন প্রয়োজন?

আপনি যদি এই আর্টিকেলটি শুরু থেকে পড়ে থাকেন তবেন এতোক্ষণে হয়তো বুঝেই গেছেন পোর্টফোলিও কতটা গুরুত্বপূর্ণ একজন ফ্রিল্যান্সার এর কাজ পাবার জন্য। পোর্টফোলিও ছাড়া একটি প্রজেক্ট হাতে পাওয়া আকাশের চাঁদ হাতে পাবার মতোই দুষ্প্রাপ্য!

মনে করেন আপনি একটা বাড়ি বানাবেন এবং এটির ডিজাইন এর জন্য একজন ইঞ্জিনিয়ার এর খোজ করছেন। যখন আপনি ইঞ্জিনিয়ার কে গিয়ে বলবেন আপনার বাড়ি টা এমন হবে, প্রতি ফ্লোরে ৪ টা বেডরুম থাকবে, প্রতি বেডরুমে বাথরুম থাকবে, কিচেন থাকবে তখন ইঞ্জিনিয়ার এরকম কিছু ডিজাইন আপনাকে দেখিয়ে দিবে পছন্দ করার জন্য আর আপনি সেখান থেকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী ডিজাইন নিজের জন্য নিতে পারবেন আর চাইলে সেই ডিজাইনে ইচ্ছেমতো পরিবর্তন ও করে নিতে পারবেন। এরপর সে যে বাড়িগুলো তৈরি করেছে সেগুলোও আপনি দেখলেন ও তার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে একটু ধারণা পেলেন ও তারপর তো আপনি তাকে সেই কাজের জন্য সিলেক্ট করবেন।

কিন্তু যদি বিষয়টা এমন হয় যে, ইঞ্জিনিয়ার আপনাকে কোন ডেমো দেখালেন না, সে ইতোপূর্বে যে কাজগুলো করেছে সেগুলোও আপনাকে দেখাতে পারলেন না! তাহলে আপনি কিভাবে তাকে বিশ্বাস করবেন ও কাজ দিবেন? নিশ্চয়ই আপনি তাকে কাজটা দিবেন না। আপনি অবশ্যই চাইবেন অভিজ্ঞ কাউকে কাজটি দিতে।

ঠিক একইভাবে আপনি যখন একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কোন কাজের জন্য বিড করবেন অনলাইনে তখন কেউ কিভাবে আপনাকে বিশ্বাস করে কাজ দিবে কোন কিছু না জেনেই আপনার কাজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে? আর যেহেতু আপনি কাজটি করছেন অনলাইনে তাই আপনার তাকে নিজের করা বেস্ট কাজগুলো দেখাতে হবে অনলাইনের মাধ্যমেই। আর যে প্রক্রিয়াতে আপনি আপনার কাজের নমুনা গুলো অনলাইনে আপনার ক্লায়েন্ট কে দেখাবেন সেটিই হলো পোর্টফোলিও। আর এজন্যই আপনার কাজ পেতে হলে নিজের একটি পোর্টফলিও থাকা জরুরি।

কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়?

পোর্টফোলিও কিভাবে তৈরি করবেন সেটি জানার আগে আপনার জানতে হবে পোর্টফোলিও কি কি ধরনের হয়ে থাকে। পোর্টফোলিও সধারণত দুই প্রকার হয়ে থাকে।

  • অনলাইন পোর্টফোলিওঃ যদি আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন আর আপনি অনলাইনে ইন্টারন্যাশনাল কাজ করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার পক্ষে কাউকে সরাসরি আপনার কাজ দেখানো সম্ভব না সামনে থেকে। তাই আপনার জন্য সমাধান হচ্ছে আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে আপনার কাজগুলো সাজিয়ে রাখলেন এবং সেই সাইট টি যে কাউকে দেখাতে পারেন।
  • প্রিন্টেড পোর্টফোলিওঃ আর যদি আপনি লোকাল মার্কেটে কাজ করে থাকেন ও ক্লায়েন্ট দের সাথে সরাসরি কথা বলে কাজ নিয়ে থাকেন তাহলে আপনি প্রিন্টেড পোর্টফোলিও ব্যবহার করতে পারেন যেখানে আপনার করা কাজের নমুনা থাকবে। ও আপনি সহজেই কাউকে দেটি দেখাতে পারবেন। কিন্তু লোকাল মার্কেটে কাজ করলেও আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকলে সুবিধা হয়, কারন আপনি তো আর সব সময় আপনার প্রিন্টেড পোর্টফোলিও সাথে নিয়ে ঘুরবেন না।

যেহেতু প্রিন্টেড পোর্টফোলিওর জন্য আপনার নিজের কিছুই করার নাই যদি না আপনি নিজেই গ্রাফিক্স ডিজাইনার হয়ে থাকেন। তাই এখানে আপনি অনলাইন পোর্টফলিও কিভাবে বানাবেন সেই বিষয়ে আলোচনা করব। তো প্রথমেই জেনে নেয়া যাক অনলাইন পোর্টফোলিও তৈরির জন্য আপনার কি কি প্রয়োজন।

ওয়েন ডিজাইন শিখতে চাইলে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

অনলাইন পোর্টফলিও তৈরির জন্য কি কি প্রয়োজন?

অনলাইনে আপনি আপনার কাজের পোর্টফোলিও সাজিয়ে রাখবেন একটি ওয়েবসাইটে আর এর আপনার একটি নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকা প্রয়োজন। আর একটি ওয়েবসাইট এর জন্য আপনার নিজস্ব ডোমেইন ও হোস্টিং থাকতে হবে। আপনি চাইলে ডোমেইন হোস্টিং বিকাশের মাধ্যমেই কিনতে পারবেন বাংলাদেশি কোম্পানি থেকে আর যেকোনো সময় সেই ডোমেইন/ হোস্টিং ট্রান্সফার ও করতে পারবেন অন্য যেকোন কোম্পানিতে। শুরু আপনার ডোমেইন হোস্টিং এর জন্য খরচ পরবে ১৫০০- ২০০০ টাকা এক বছরের জন্য।

এছাড়া আপনি চাইলে ফ্রিতেও ডোমেইন হোস্টিং ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু সে ক্ষেত্রে আপনি কিছু সমস্যার মুখোমুখি হতে পারেন। যেমনঃ ওয়েবসাইট লোডিং এ বেশি সময়, অতিরিক্ত এডস বা রিডাইরেক্ট অথবা অনেক সময় সার্ভার ডাউন ইত্যাদি। তাই আমি বলব আপনি যদি ফ্রি ডোমেইন হোস্টিং দিয়ে আপনার পোর্টফোলিও বানাতে তাহলে এটি কোন উপকারে তো আসবেই না বরং উলটো আপনার ক্লায়েন্ট এর মনে একটা নেগেটিভ ধারণা সৃষ্টি হবে আপনার সম্পর্কে। তাই ১৫০০-২০০০ টাকা খরচ করে ডোমেইন হোস্টিং কিনে ফেলাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। আর আপনি একটি ডোমেইন, হোস্টিং দিয়ে চাইলে একাধিক সাইট ও বানাতে পারেন।

যেমন আমি আমার penmanbd.com ডোমেইন ও হোস্টিং কিনেছি আমার এই ব্লগ সাইটের জন্য। এখন এই এই ডোমেইন ও হোস্টিং ব্যবহার করে ফ্রিতেই আমি আমার পোর্টফোলিও তৈরি করে ফেলেছি। আমার পোর্টফোলিও টি দেখে নিন।

My Portfolio- https://portfolio.penmanbd.com

পোর্টফোলিও তৈরিঃ

ধরে নিলাম এখন আপনার একটি নিজস্ব ডোমেইন ও হোস্টিং রয়েছে, হোক সেটি ফ্রি অথবা পেইড। তো এখন পোর্টফোলিও বানানোর জন্য প্রথমে আপনাকে যেটি করতে হবে সেটি হলো আপনার হোস্টিং অর্থাৎ সিপ্যানেল এ ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে হবে।

তো সিপ্যানেলে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল দেয়ার পদ্ধতি রয়েছে দুইটি একটি হলো ম্যানুয়াল যেখানে আপনাকে সিপ্যানেল থেকে ডেটাবেজ ক্রিয়েট করতে হবে তারপর ওয়ার্ডপ্রেস ফাইল আপনার ফাইল ম্যানেজারের রুট ডিরেক্টরি তে আপলোড দতে হবে আর অপর টি হলো softaculous apps installer. এটির মাধ্যমে অটোমেটিক ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে পারবেব এক ক্লিকের মাধ্যমেই। এর জন্য আপনার ডাটাবেইজ ও ক্রিয়েট করতে হবে আর কোন ভূল হবার ও সম্ভাবনা নাই। তাই আমি সাজেস্ট করব এই softaculous apps installer এর মাধ্যমে আপনারা ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করেন।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করবেনঃ

প্রথমেই আপনার সিপ্যানেলে লগইন করুন। লগিন ইনফরমেশন আপনি হোস্টিং প্রভাইডার এর থেকে পেয়ে যাবেন। সিপ্যানেলে লগইন করার পর নিচের দিলে স্ক্রল করে softaculous apps installer এ ক্লিক করুন। এরপর Scripts এ থাকা ওয়ার্ডপ্রেস এ ক্লিক করুন।

পোর্টফোলিও কি? কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়?

পরবর্তী পেইজে আপনাকে তেমন কিছুই করতে হবে না, আপনাকে যেই জায়গায় পরিবর্তন করতে হবে।

  • Choose Installation URL– Software setup এর নিচে থেকে choose installation url এখান থেকে আপনার ডোমেইন সিলেক্ট করে দিন যেখানে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে চান এবং In Directory এইটা ফাকা রেখে দিন।
  • Admin Account- এখান থেকে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের জন্য ইউজারনেম, পাসওয়ার্ড এবং ইমেইল দিয়ে দিন যেগুলো দিয়ে আপনি পরবর্তীতে আপনার এডমিন প্যানেলে প্রবেশ করতে পারবেন।
পোর্টফোলিও কি? কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়?
সিপ্যানেলে কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে হয়

এখানে আপনার কাজ শেষ, এবার নিচের দিক থেকে ইন্সটল এ ক্লিক করলেই অটোমেটিক ইন্সটল প্রসেস শুরু হয়ে যাবে। ইন্সটল হতে কিছুটা সময় লাগবে, অপেক্ষা করুন। ইন্সটল হয়ে গেলে এরকম একটা মেসেজ দেখতে পাবেন।

পোর্টফোলিও কি? কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়?
পোর্টফোলিও কি? কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে হয়

হয়ে গেল ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল আপনার ওয়েবসাইটে। এখন সাইটে ভিজিট করলে ওয়ার্ডপ্রেস এর ডিফল্ট থিম দেখতে পাবেন। আর এডমিন প্যানেলে প্রবেশ করার জন্য সাইটের সাথে wp-admin এড করনবেন। যদি আপনার সাইট হয় example.com তাহলে আপনার এডমিন প্যানেলে হবে example.com/wp-admin

এখন আপনার কাজ বাকি রয়েছে শুধু পোর্টফোলিওর জন্য থিম ইন্সটল করা। ওওয়ার্ডপ্রেসে কিভাবে থিম ইন্সটল করতে হয় এটা যদি আপনি না জানেন তবে তা ওয়ার্ডপ্রেস এর অফিসিয়াল আর্টিকেল থেকে দেখে নিতে পারেন।

বেস্ট পোর্টফোলিও থিম

আপনার সুবিধার্থে এখানে কিছু সেরা ওয়ার্ডপ্রেস থিম দিলাম পোর্টফোলিওর জন্য। এইগুলোর ফ্রি এবং পেইড দুই ভার্শনিই আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। আমার কাছে যেহেতু Generatepress থিম অলরেডি কেনা রয়েছে ও এই থিম দিয়েই আমার এই সাইট তৈরি তাই আমি Generatepress দিয়েই আমার পোর্টফোলিও সাইট ও তৈরি করে নিয়েছি। আমার পোর্টফোলিও দেখে নিতে পারেন এখান থেকে।

আপনারা যদি Generatepress থিম লাইফটাইম লাইসেন্স সহ কম দামে কিনতে চান তাহলে এই আর্টিকেলের শেষে দেয়া আমার ফেইসবুক পেইজে মেসেজ করতে পারেন আর Generatepress থিম সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন এই আর্টিকেল থেকে।

পোর্টফোলিওর জন্য বেস্ট থিমগুলো দেখে নিনঃ

এই থিম গুলো সহ যেকোনো ওয়ার্ডপ্রেস থিম কম দামে পাবার জন্য আমাদের পেইজে মেসেজ করতে পারেন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজঃ Penmanbd

শেষকথা

আপনি যদি পুরো আর্টিকেল টি ভালোভাবে পড়েন তাহলে আপনার পোর্টফোলিও কি? কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়? এই বিষয়ে আর কোন কিছু জানার বাকি থাকবে না। এর পরেও কোথাও বুঝতে সমস্যা হলে অথবা কিছু জানার থাকলে সেটি অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আমি চেষ্টা করব সেই বিষয়ের সমাধান করার জন্য। বাংলা ভাষায় ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য এই আর্টিকেল টি পড়তে পারেন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজঃ Penmanbd

Share:

Hi, I'm Abdus Salam, founder of Penmanbd. I like to write and freelance in my spare time.

 

Leave a Comment